বাংলার জন্য ক্লিক করুন
   বৃহস্পতিবার, ১ অক্টোবর 2020 | ,২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৭
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   আন্তর্জাতিক -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
বিশ্বজুড়ে করোনায় মৃতের সংখ্যা ছাড়াল ৩ লাখ

বিশ্বব্যাপী  করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা প্রতিনিয়তই বাড়ছে। ইতোমধ্যে ৩ লাখ মানুষ মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৪৫ লাখ মানুষ। আর সুস্থও হয়েছেন প্রায় সাড়ে ১৫ লাখ মানুষ। 

করোনাভাইরাসে গতকাল বৃহস্পতিবারও বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মারা গেছে ৫ হাজারের বেশি মানুষ। ফলে এই ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা গতকালই ৩ লাখ ছাড়িয়ে যায়। 

ওয়ার্ল্ডোমিটারের সর্বশেষ পরিসংখ্যান থেকে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে মারা গেছে আরও ৫ হাজার ৩১৭ জন। ফলে এই মুহূর্তে করোনায় মোট মৃত্যু বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৩ হাজার ৩৭২ জন। এদের মধ্যে শুক্রবার সকালেই মারা গেছে আরও ২৯০ জন।

বৃহস্পতিবারও করোনায় সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে, ১ হাজার ৭১৫ জন। ফলে দেশটিতে মোট মৃত্যু বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৬ হাজার ৯১২তে। সেখানে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে মোট ১৪ লাখ ৫৭ হাজার ৫৯৩ জন। আক্রান্ত ও মৃত্যুতে এখনও করোনা তালিকার শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

মৃত্যুতে শীর্ষ দেশগুলোর মধ্যে যুক্তরাজ্যে ৩৩ হাজার ৬১৪, ইতালিতে ৩১ হাজার ৩৬৪, স্পেনে ২৭ হাজার ৩২১, ফ্রান্সে ২৭ হাজার ৪২৫, ব্রাজিলে ১৩ হাজার ৯৯৯, বেলজিয়ামে ৮ হাজার ৯০৩, জার্মানিতে ৭ হাজার ৯২৮, ইরানে ৬ হাজার ৮৫৪, নেদার‍ল্যান্ডস ৫ হাজার ৫৯০ এবং কানাডায় মারা গেছে ৫ হাজার ৪৭২ জন।

তবে করোনায় লাখ লাখ মানুষ মারা গেলেও সুস্থ হয়ে উঠার সংখ্যাও কিন্তু কম নয়। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ১৭ লাখ ৩ হাজার ৮০৮ জন। এখন চিকিৎসাধীন রয়েছেন ২৫ লাখের বেশি মানুষ। এদের মধ্যে ৪৫ হাজারের অবস্থা আশঙ্কাজনক। অর্থাৎ আগামীতে করোনায় মৃত্যু যে সাড়ে ৩ লাখ ছাড়িয়ে যাবে তা এক প্রকার নিশ্চিত।

এদিকে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ১০৮টি গবেষক দল করোনা ভ্যাকসিন আবিষ্কারের চেষ্টায় রয়েছে। এরই মধ্যে ভ্যাকসিনের প্রথম ধাপ অর্থাৎ মানবদেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগ করা হয়েছে।

বিশ্বজুড়ে করোনায় মৃতের সংখ্যা ছাড়াল ৩ লাখ
                                  

বিশ্বব্যাপী  করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা প্রতিনিয়তই বাড়ছে। ইতোমধ্যে ৩ লাখ মানুষ মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৪৫ লাখ মানুষ। আর সুস্থও হয়েছেন প্রায় সাড়ে ১৫ লাখ মানুষ। 

করোনাভাইরাসে গতকাল বৃহস্পতিবারও বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মারা গেছে ৫ হাজারের বেশি মানুষ। ফলে এই ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা গতকালই ৩ লাখ ছাড়িয়ে যায়। 

ওয়ার্ল্ডোমিটারের সর্বশেষ পরিসংখ্যান থেকে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে মারা গেছে আরও ৫ হাজার ৩১৭ জন। ফলে এই মুহূর্তে করোনায় মোট মৃত্যু বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৩ হাজার ৩৭২ জন। এদের মধ্যে শুক্রবার সকালেই মারা গেছে আরও ২৯০ জন।

বৃহস্পতিবারও করোনায় সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে, ১ হাজার ৭১৫ জন। ফলে দেশটিতে মোট মৃত্যু বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৬ হাজার ৯১২তে। সেখানে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে মোট ১৪ লাখ ৫৭ হাজার ৫৯৩ জন। আক্রান্ত ও মৃত্যুতে এখনও করোনা তালিকার শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

মৃত্যুতে শীর্ষ দেশগুলোর মধ্যে যুক্তরাজ্যে ৩৩ হাজার ৬১৪, ইতালিতে ৩১ হাজার ৩৬৪, স্পেনে ২৭ হাজার ৩২১, ফ্রান্সে ২৭ হাজার ৪২৫, ব্রাজিলে ১৩ হাজার ৯৯৯, বেলজিয়ামে ৮ হাজার ৯০৩, জার্মানিতে ৭ হাজার ৯২৮, ইরানে ৬ হাজার ৮৫৪, নেদার‍ল্যান্ডস ৫ হাজার ৫৯০ এবং কানাডায় মারা গেছে ৫ হাজার ৪৭২ জন।

তবে করোনায় লাখ লাখ মানুষ মারা গেলেও সুস্থ হয়ে উঠার সংখ্যাও কিন্তু কম নয়। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ১৭ লাখ ৩ হাজার ৮০৮ জন। এখন চিকিৎসাধীন রয়েছেন ২৫ লাখের বেশি মানুষ। এদের মধ্যে ৪৫ হাজারের অবস্থা আশঙ্কাজনক। অর্থাৎ আগামীতে করোনায় মৃত্যু যে সাড়ে ৩ লাখ ছাড়িয়ে যাবে তা এক প্রকার নিশ্চিত।

এদিকে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ১০৮টি গবেষক দল করোনা ভ্যাকসিন আবিষ্কারের চেষ্টায় রয়েছে। এরই মধ্যে ভ্যাকসিনের প্রথম ধাপ অর্থাৎ মানবদেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগ করা হয়েছে।

বিশ্বে মৃতের সংখ্যা এখন প্রায় তিন লাখ
                                  

বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৪০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। ওয়ার্ল্ডোমিটারে সর্বশেষ তথ্য বলছে, গতকাল শনিবার পর্যন্ত ভাইরাসটি শনাক্ত হয়েছে ৪০ লাখ ১৪ হাজার ৪০১ জনের শরীরে। এছাড়া আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২ লাখ ৭৬ হাজার ৩৩৮ জন। বর্তমানে ভাইরাসটির উপস্থিতি রয়েছে ২৩ লাখ ৫১ হাজার ৪৮০ জনের শরীরে। এদের মধ্যে ২৩ লাখ ৫০ হাজার ৯৭২ জনের সংক্রমণ মৃদু এবং ৪৮ হাজার ৬৯৯ জনের অবস্থা গুরুতর।

তবে এর মধ্যে আশার খবরও আছে। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৩ লাখ ৮৭ হাজার ১৯১ জন। আক্রান্ত বেশি হওয়ায় সবচেয়ে বেশি সুস্থ হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে; ২ লাখ ২০ হাজার। এরপর জার্মানিতে আক্রান্ত ১ লাখ ৭০ হাজারের মধ্যে ১ লাখ ৪০ হাজার সুস্থ। স্পেনে এই সংখ্যাটা ১ লাখ ৬৮ হাজার।

যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিদিন গড়ে ২৮ হাজার মানুষ নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন। সবচেয়ে বাজে অবস্থা দেশটির জনবহুল নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের। ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, গতকাল শনিবার সকাল পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে ৭৮ হাজার ৬১৬ জন মারা গেছেন; যা বিশ্বে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু। দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যাও বিশ্বে সর্বোচ্চ ১৩ লাখ ২২ হাজার ১৬৩ জন। শুধু নিউইয়র্কে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৩ লাখ ৪০ হাজারের বেশি। নিউইয়র্কে যত মানুষ আক্রান্ত হয়েছে বিশ্বের অন্য কোনো দেশে তত আক্রান্ত নেই। সেখানে মারা গেছে ২৬ হাজার ৫৮১ জন।

মৃত্যুর সংখ্যায় যুক্তরাষ্ট্রের পরেই রয়েছে ইউরোপের দেশ যুক্তরাজ্য। দেশটিতে এখন পর্যন্ত এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ৩১ হাজার ৩১৬ জন। আক্রান্ত হয়েছে ২ লাখ ১২ হাজার ৬২৯ জন। তৃতীয় অবস্থানে থাকা ইতালিতেও মৃতের সংখ্যা ৩০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ৩০ হাজার ২০১ জন। আর মোট আক্রান্ত হয়েছে ২ লাখ ১৭ হাজার ১৮৫ জন।

ইউরোপেরই অন্য দেশগুলোর মধ্যে স্পেনে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ২৬ হাজার ২৯৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। স্পেনে মৃতের সংখ্যা যুক্তরাজ্য ও ইতালির চেয়ে কম হলেও আক্রান্তের সংখ্যা বেশি। স্পেনে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ২ লাখ ২২ হাজার ৮৫৭ জন। অন্যদিকে ফ্রান্সে এখন পর্যন্ত মৃত্যুর সংখ্যা স্পেনের কাছাকাছি। দেশটিতে মৃত্যু হয়েছে ২৬ হাজার ২৩৩ জনের। আর আক্রান্ত হয়েছে ১ লাখ ৭৬ হাজার ২০২ জন। আক্রান্তের দিক দিয়ে রাশিয়ার অবস্থান পঞ্চম। সেখানে শনাক্ত ১ লাখ ৮৮ হাজারের বেশি রোগীর ১ হাজার ৭২৩ জন মারা গেছে। এছাড়া জার্মানিতে মৃতের সংখ্যা ৭ হাজার ৫০০।

আক্রান্তের দিকে এরপরই রয়েছে ব্রাজিল ও তুরস্ক। ব্রাজিলে আক্রান্ত ১ লাখ ৪১ হাজারের মধ্যে প্রায় ১০ হাজার ও তুরস্কে আক্রান্ত ১ লাখ ৩৫ হাজার ৫০ এর মধ্যে ৩ হাজার ৭০০ জন মারা গেছেন। ইরানের শনাক্ত রোগীর সংখ্যা লাখ ছাড়িয়েছে। দেশটিতে সরকারিভাবে ৬ হাজার ৫৪১ মৃত্যুর কথা জানানো হয়েছে।

উহানে প্রাদুর্ভাব শুরু হলেও আক্রান্তের দিক দিয়ে চীনের অবস্থান এখন ১১। দেশটিতে শনাক্ত ৮৪ হাজার রোগীর ৪ হাজার ৬৩৭ জন মারা গেছেন এবং সুস্থ হয়েছেন প্রায় ৭৮ হাজার। এরপর কানাডায় আক্রান্তের সংখ্যা ৬৬ হাজারের বেশি। মারা গেছে সাড়ে ৪ হাজার। পেরুতে আক্রান্ত ৫৮ হাজারে মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৬২৭ জনের।

প্রতিবেশী ভারতের করোনার সংক্রমণ গত কয়েক দিনে আশঙ্কাজনক হারে বেড়েছে। দেশটিতে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা এখন ৬০ হাজার। আক্রান্তদের মধ্যে প্রায় ২ হাজার মানুষ মারা গেছে। এদিকে পাকিস্তানে আক্রান্ত ২৬ হাজারের বেশি মানুষের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৬০০ জনের। গত শুক্রবার ১ হাজার ৭০০ এর বেশি আক্রান্ত। ইউরোপের আরেক দেশ বেলজিয়ামে আক্রান্ত ৫২ হাজার কোভিড-১৯ রোগীর ৮ হাজার ৫২১ জন মারা গেছে। এ

ছাড়া নেদারল্যান্ডসে যে ৪২ হাজার মানুষ আক্রান্ত হয়েছিলেন তাদের মধ্যে ৫ হাজার ৪০০ জন আর নেই। এদিকে সৌদি আরবে আক্রান্ত ৩৫ হাজারের ২২৯ জন ইতোমধ্যে মারা গেছে। মেক্সিকোতে মারা গেছে প্রায় ৩ হাজার।এছাড়া মৃত্যুর তালিকায় ওপরে থাকা দেশগুলো যথাক্রমে সুইডেন ৩ হাজার ১৭৫, আয়ারল্যান্ড ১ হাজার ২৯, সুইজারল্যান্ড ১ হাজার ৮১০, ইকুয়েডর ১ হাজার ৬৫৪, ইন্দোনেশিয়া ৯৪৩।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়া করোনাভাইরাস এখন পর্যন্ত বাংলাদেশসহ বিশ্বের ১৮৭টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। 

করোনায় বিশ্বে মৃতের সংখ্যা ১ লাখ ৭৯ হাজার
                                  

করোনাভাইরাস মহামারিতে বিশ্বজুড়ে মৃত্যুর মিছিল দীর্ঘ হচ্ছে।  সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী করোনায় বিশ্বজুড়ে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে  ২৫ লাখ ৮৫হাজার ৩৯২ জন। এ পর্যন্ত মারা গেছেন ১ লাখ ৭৯ হাজার ৮৬৬ জন। আর সুস্থ হয়ে ফিরেছেন ৭ লাখ ৫ হাজার ৭৫৪ জন। এ মহামারি এ পর্যন্ত বিশ্বের ২০০ দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে।

সবচেয়ে বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রে। সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী দেশটিতে আক্রান্ত ৮ লাখ ১৮ হাজার ছড়িয়েছে। মৃত্যুও বিশ্বের সব দেশকে ছাড়িয়ে ৪৫ হাজার অতিক্রম করেছে। করোনায় আক্রান্ত শীর্ষ দেশগুলোর মধ্যে আরো রয়েছে স্পেন, ইটালি, ফ্রান্স, জার্মানি ও যুক্তরাজ্য। 

করোনার হটস্পট হয়ে উঠা স্পেনে ২ লাখ মানুষ আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মৃত্যু ২১ হাজার ছাড়িয়েছে। আর ইতালিতে ১ লাখ ৮৩ হাজার মানুষ আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু ২৪ হাজার ছাড়াল।

অন্যদিকে উৎপত্তিস্থল চীনে মৃতের সংখ্যা ৪ হাজার ৬৩৬। যদিও দেশটির বিরুদ্ধে প্রকৃত পরিস্থিতি গোপন করার অভিযোগ রয়েছে। উহানের একজন স্বেচ্ছাসেবী বলেন, ‘বুদ্ধি-বিবেচনাসম্পন্ন যেকোনো মানুষ এই সংখ্যা (সরকারি পরিসংখ্যান) নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করবেন। অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী মারিসে পেইনি বলেছেন, করোনা নিয়ে চীনের স্বচ্ছতার বিষয়টি সর্বোচ্চ উদ্বেগে পরিণত হয়েছে।

এদিকে করোনা মহামারির ফলে দুর্ভিক্ষের ঝুঁকিতে রয়েছে আফ্রিকাসহ বেশ কিছু স্বল্পোন্নত দেশ। বিভিন্ন দেশে লকডাউন ও ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার ফলে ত্রাণ কার্যক্রম ব্যাহত হওয়ায় এ শঙ্কা তৈরি হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ২০০৭-৮ সালের দিকে খাবারের দাম বেড়ে যাওয়ায় বিশ্বজুড়ে যে ধরনের সহিংস পরিস্থিতি দেখা গিয়েছিল তার পুনরাবৃত্তি হতে পারে। বিশ্ব চাইলে আসন্ন এ সংকট ঠেকাতে পারে; তবে তা করার সময় ফুরিয়ে আসছে। খুব দ্রুতই সম্মিলিতভাবে ব্যবস্থা নিতে হবে।

ফসলের ওপর পঙ্গপালের আক্রমণের কারণে এমনিতেই তীব্র সমস্যার মধ্যে আছে আফ্রিকার বেশ কয়েকটি দেশ। ৭০ বছরের মধ্যে এতটা খারাপ পরিস্থিতিতে আর পড়তে হয়নি তাদের। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আগেই এসব দেশের অন্তত ২ কোটি মানুষ প্রচণ্ড খাদ্য অনিরাপত্তাজনিত ঝুঁকিতে ছিল।

জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষিবিষয়ক সংস্থার (এফএও) জরুরি ব্যবস্থাপনাবিষয়ক পরিচালক ডমিনিক বারজিওন বলেন, ‘খাদ্য নিরাপত্তাজনিত দিক থেকে কিছু জায়গা দুর্ভিক্ষের কাছাকাছি পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। অভাবের মাত্রাটা এমনিতেই অনেক বেশি। এ সময়ে আরেকটি আঘাত তারা সহ্য করতে পারবে না। এ নিয়ে আমরা খুব উদ্বেগে আছি।

বিশ্বে মৃত্যুর মিছিল ক্রমেই দীর্ঘ হচ্ছে
                                  

বিশ্বব্যাপী প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে সংক্রমণে মৃত্যুর মিছিল ক্রমেই দীর্ঘ হচ্ছে। বাড়ছে হাহাকার। করোনার গ্রাসে সব থেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত ইউরোপ-আমেরিকা। বিশ্বের প্রথম সারির দেশগুলোতেই করোনার থাবা পড়েছে প্রচণ্ড।বিশ্বে ১লক্ষ ৭১হাজার৩৩৮জনের মৃত্যু হয়েছে ।মোট আক্রান্ত ২৪ লক্ষ৯৯হাজার ৫৪৬ জন ।সুস্থ হয়ে বাড়ি গেছেন ৬ লক্ষ ৫৮ হাজার ৪৪ জন ।

করোনায় বিশ্ব স্থবির
                                  

বিশ্বব্যাপী মহামারিতে রূপ নেওয়া করোনাভাইরাসে মৃত্যুর মিছিলে যোগ হলো আরো ১১ হাজার ৩৭৫ জন। এ নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়াল ১ লাখ ৪৫ হাজার ৯৯০ জন। বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের সর্বশেষ পরিসংখ্যান জানার অন্যতম ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, গতকাল শুক্রবার সকাল পর্যন্ত কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়েছেন বিশ্বের ২১ লাখ ৮২ হাজার ১৯৭ জন।

এদের মধ্যে বর্তমানে ১৪ লাখ ৮৯ হাজার ৩৮১ জন চিকিৎসাধীন এবং ৫৬ হাজার ৫৫৮ জন (৪ শতাংশ) আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছেন। এ পর্যন্ত করোনাভাইরাস আক্রান্তদের মধ্যে ৫ লাখ ৪৭ হাজার ২৯৫ জন (৭৯%) সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

এদিকে নতুন করে প্রায় ১৩০০ মানুষের মৃত্যুর তথ্য প্রকাশ করেছে চীন। দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা শিনহুয়া জানিয়েছে, উহানে করোনায় মৃতের প্রকৃত সংখ্যা ৩ হাজার ৮৬৯ জন। এ তালিকায় নতুন করে ১ হাজার ২৯০ জনের নাম যোগ করা হয়েছে। সংশোধন করা হয়েছে আক্রান্তের সংখ্যাও। নতুন ৩২৫ জন যোগ করে উহানে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫০ হাজার ৩৩৩ জন।

চীনের মৃত্যুর সংখ্যা কয়েক সপ্তাহ ধরে ৩,৩০০ জনে স্থিতিশীল থাকলেও এখন এই সংখ্যা এক লাফে ৪,৬০০ জনে উঠেছে। এর কারণ হলো উহান শহরে, যেখানো সর্বপ্রথম করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছিল, সেখানে মৃত্যুর সংখ্যা ৫০% বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪ হাজার ৬৩২ যা আগের সংখ্যার চেয়ে ৩৯ শতাংশ বেশি।

এত দিন এসব মানুষের মৃত্যুর তথ্য প্রকাশে বিলম্ব হওয়ার বেশ কয়েকটি কারণ উল্লেখ করেছে শিনহুয়া। প্রথম কারণ হিসেবে বলা হয়েছে, অনেকেই চিকিৎসকের কাছে যাওয়ার আগেই বাড়িতে মারা গেছেন এবং সে সময় তাদের অনেকেরই করোনার টেস্ট করা হয়নি।

করোনাভাইরাস বাংলাদেশসহ বিশ্বের ২১০টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। গত ১১ মার্চ করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

ভাইরাসটির আক্রমণে সবচেয়ে নাজুক অবস্থা যুক্তরাষ্ট্রের। আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যার হিসেবে যেকোনো দেশকে ছাড়িয়ে গেছে যুক্তরাষ্ট্র। গত বৃহস্পতিবার দেশটিতে ৪ হাজার ৪৯১ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশটির নিউইয়র্ক রাজ্যে প্রাদুর্ভাব ছড়িয়েছে বেশি। যুক্তরাষ্ট্রে মোট মৃত্যুর অর্ধেকেই হয়েছে শুধু এই রাজ্যেই। সেখানে ৬ লাখ ৭৭ হাজার ৫৭০ জনের শরীরে ভাইরাসটি শনাক্ত হয়েছে। আর মোট মৃত্যু ৩৪ হাজার ৬১৭। করোনাভাইরাসে এক দিনে রেকর্ড সংখ্যক মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

আক্রান্তের সংখ্যায় এর পরের অবস্থানে রয়েছে স্পেন, ইতালি, ফ্রান্স, জার্মানি ও যুক্তরাজ্য। জার্মানিতে মৃতের সংখ্যা কিছুটা কম হলেও বাকি দেশগুলোতে মৃতের সংখ্যা ১০ হাজারের বেশি। এ রাজ্যে শাটডাউনের মেয়াদ ১৫ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

এদিকে, করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে যুক্তরাজ্যে আরো কমপক্ষে তিন সপ্তাহ লকডাউন জারি থাকবে বলে জানিয়ছে দেশটির সরকার। গত বৃহস্পতিবার ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের পক্ষ থেকে এমনটি জানান দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডমিনিক রাব।

করোনায় প্রাণহানি ১ লাখ ছাড়াল
                                  

বিশ্বব্যাপী বুলেটের গতিতে বাড়ছে করোনা আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা। এরই মধ্যে এই ভাইরাসে সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন  লাখেরও বেশি। অথচ এক দিন আগেও তা ছিল ১৫ লাখ। গত শুক্রবার পর্যন্ত এ সংখ্যা ছিল ১০ লাখেরও কম। আর বিশ্বব্যাপী এখন পর্যন্ত করোনায় প্রায় এক১ লাখের বেশি মানুষের প্রাণহানি হয়েছে।

বিশ্বের প্রায় ২০৯টি দেশ এবং অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে এই ভাইরাস। এখনও পর্যন্ত এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১৭ লাখ ২৮হাজার ছুঁই ছুঁই। সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, আক্রান্তের দিক দিয়ে সবার উপরে যুক্তরাষ্ট্র আর সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে ইতালিতে।

এখন পর্যন্ত বিশ্বে মোট ১৭ লাখ ১৭ হাজার ৬০২ জনের দেহে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত করা হয়েছে। এরমধ্যে মারা গেছেন ১ লাখ ৫৭২২ জন। আক্রান্তদের মধ্যে অবশ্য ৩ লাখ ৯০ হাজার ৫৯৮ জন সুস্থ হয়েছেন।

গত ডিসেম্বরে চীনে প্রথম করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে বিশ্বের ১৯২ দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত বেড়ে ১৭ লাখ ২৭ হাজার ছাড়িয়েছে।  বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দেওয়া তথ্য থেকে সংগ্রহ করা উপাত্ত ব্যবহার করে তৈরি করা এ পরিসংখ্যান করোনাভাইরাসের প্রকৃত আক্রান্তের সংখ্যার শুধু একটি আংশিক প্রতিফলন বলে ধারণা করা হচ্ছে। কেননা, বিশ্বের অনেক দেশ শুধু মারাত্মকভাবে আক্রান্ত লোকদেরই করোনা পরীক্ষা করছে।

করোনাভাইরাসে ইতালিতে আক্রান্ত হয়েছে ১ লাখ ৪৩ হাজার ৬২৬ জন এবং মারা গেছে ১৮ হাজার ২৭৯ জন। মৃতের এ সংখ্যা বিশ্বে সর্বোচ্চ। গত ফেব্রুয়ারি মাসের শেষের দিকে দেশটিতে প্রথম করোনাভাইরাসে মৃত্যু ঘটে। স্পেনে করোনাভাইরাসে ১ লাখ ৫২ হাজার ৪৪৬ জন আক্রান্ত এবং ১৫ হাজার ২৩৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে ৪ লাখ ৫১ হাজার ৪৯১ জন আক্রান্ত এবং ১৫ হাজার ৯৩৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যুর এ সংখ্যা বিশ্বে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ এবং আক্রান্তের সংখ্যা সর্বোচ্চ। দেশটিতে সবচেয়ে দ্রুত এ মহামারি ভাইরাস ছড়ানোর প্রবণতা লক্ষ করা যাচ্ছে।

ফ্রান্সে করোনাভাইরাসে ১২ হাজার ২১০ জনের মৃত্যু এবং ১ লাখ ১৭ হাজার ৭৪৯ জন আক্রান্ত হয়েছে। এরপর যুক্তরাজ্যে করোনাভাইরাসে ৭ হাজার ৯৭৮ জনের মৃত্যু এবং ৬৫ হাজার ৭৭ জন আক্রান্ত হয়েছে। চীনে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩ হাজার ৩৩৫ এবং আক্রান্তের সংখ্যা ৮১ হাজার ৮৬৫ জনে দাঁড়িয়েছে। দেশটিতে ৭৭ হাজার ৩৭০ জন সুস্থ হয়ে উঠেছে।

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে ইসলামি প্রজাতন্ত্রের দেশ ইরানে নতুন করে আরো ১২২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্য দেশটিতে করোনায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৪ হাজার ২৩২ জনে। শুক্রবার ইরানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা এ তথ্য জানায়।

রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র কিয়ানুশ জাহানপুর জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ইরানে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৯৭২ জনের। সরকারি হিসাবে দেশটিতে এখন পর্যন্ত মোট ৬৮ হাজার ১৯২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে ৩ হাজার ৯৬৯ জনের অবস্থা গুরুতর। এশিয়া ও মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর মধ্যে চীনের পরপরই ইরান করোনায় সবচেয়ে বেশি ভুক্তভোগী। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী এখন পর্যন্ত করোনায় ভাইরাসে সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন ১৬ লাখেরও বেশি। প্রাণহানি বেড়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় এক লাখের মতো। অন্যদিকে আক্রান্তদের মধ্যে বিশ্বব্যাপী এখন পর্যন্ত ৩ লাখ ৫৬ হাজারের মতো মানুষ সেরে উঠেছেন।

নতুন দেশ হিসেবে বুধবার সোমালিয়া ও দিজবৌতিতে প্রথম একজন করে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত মৃত্যুর কথা জানানো হয়।

 

এশিয়ায় করোনাভাইরাসে ১ লাখ ২৮ হাজার ৬৯০ জন আক্রান্ত ও ৪ হাজার ৫১৪ জন মারা গেছেন। মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে মোট ৮৮ হাজার ৯৮৫ জন আক্রান্ত এবং ৪ হাজার ৩৫৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। লাতিন আমেরিকা ও ক্যারিবীয় দেশগুলোতে করোনাভাইরাসে ৪৬ হাজার ৮৩৩ জন আক্রান্ত এবং ১ হাজার ৮৭৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। আফ্রিকায় করোনাভাইরাসে মোট ১১ হাজার ৯৫৩ জন আক্রান্ত হয়েছে এবং ৬২৭ জন মারা গেছে। ওশেনিয়ায় করোনাভাইরাসে ৭ হাজার ২২৫ জন আক্রান্ত ও ৫৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বাড়িতে থেকেও ইতালিতে করোনা থেকে রেহাই মিলছে না
                                  

করোনা পরিস্থিতি সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছে ইতালি। দেশটিতে মৃত্যু বাড়ছে লাফিয়ে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে আরও ৮১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃত্যু হয়েছে ১১ হাজার ৫৯১ জনের। এরমধ্যে রয়েছেন ৬১ জন চিকিৎসকও।

ইতালিয়ান অ্যাসোসিয়েশন অব ডক্টরসের বরাত দিয়ে সিএনএন জানাচ্ছে, করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে ৬১ জন চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে ৪১ জনই লম্বার্দি অঞ্চলের।

অপরদিকে ইতালির জাতীয় স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট বলছে, দেশটিতে মোট ৮ হাজার ৯৫৬ স্বাস্থ্যকর্মী করোনা ভাইরাসে আক

২০১৯ সালের শেষ দিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে ছড়িয়ে যাওয়া কভিড-১৯ মহামারিতে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে ইতালিতে। দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যাও লাখ ছাড়িয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৪ হাজার ৫০ জন। এ নিয়ে দেশটিতে মোট আক্রান্ত ১ লাখ ১ হাজার ৭৩৯ জন। আর চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়েছে ১৪ হাজার ৬২০ জন।

ওয়ার্ল্ডওমিটারের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বের প্রায় সব দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে গেছে কভিড-১৯। এতে মৃত্যু হয়েছে ৩৭ হাজার ৫৭৮ জনের। মোট আক্রান্ত প্রায় ৭ লাখ ৮২ হাজার। চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়েছেন প্রায় ১ লাখ ৬৫ হাজার।

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো স্বেচ্ছায় আইসোলেশনে
                                  

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো রোববার বলেছেন, তিনি স্বেচ্ছায় আইসোলেশনে থাকবেন। এদিকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত তার স্ত্রী সুস্থ্য হয়ে উঠেছেন। খবর এএফপি’র।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, সোফি গ্রিগোরি ট্রুডো শনিবার তার চিকিৎসকদের কাছ থেকে করোনাভাইরাস থেকে সুস্থ হয়ে উঠার ছাড়পত্র পেয়েছেন। এদিকে প্রধানমন্ত্রী নিজের করোনাভাইরাসের কোন উপসর্গ না থাকলেও তিনি কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত স্ত্রীর সাথে একই ছাদের নিচে বসবাস করছিলেন।
ট্রুডো বলেন, ‘কানাডার স্বাস্থ্যবিধি ও সুপারিশমালা অনুযায়ী আমি আমার আইসোলেশন অব্যাহত রাখবো।’
যেহেতু চিকিৎসকরা সোফি গ্রিগোরি ট্রুডো প্রকৃতপক্ষে কখন ভাইরাসমুক্ত হয়েছেন তা না জানায় প্রধানমন্ত্রী তার নিজের আরও ১৪ দিন অবরূদ্ধ থাকার কথা বলেছেন।
অটোয়ায় তার রিদিয়াউ কটেজ বাসভবনের বারান্দা থেকে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে ট্রুডো বলেন, টেলিফোন ও ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কীভাবে অনেক কাজ করা যায় কানাডার কর্মীরা তা করে দেখিয়েছেন। প্রকৃতপক্ষে এই কাজটি আমি করে যাচ্ছি।
লন্ডন সফর থেকে ফেরার পর গত ১২ মার্চ করোনাভাইরাস পরীক্ষায় তার স্ত্রীর এ ভাইরাস ধরা পড়ে। তারপর থেকেই প্রধানমন্ত্রী স্বেচ্ছায় আইসোলেশনে চলে যান।
শনিবার ট্রুডোর স্ত্রী জানান, তার চিকিৎসকরা তাকে ভাইরাস থেকে সেরে উঠার কথা জানিয়ে তাকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যাওয়ার সবুজ সংকেত দিয়েছেন।
জন হফকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের দেয়া তথ্য থেকে জানা যায়, রোববার পর্যন্ত কানাডায় করোনাভাইরাসে ৬ হাজার ২৪৩ জন আক্রান্ত এবং ৬৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।

 

ইতালিতে মৃতের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়ালো
                                  

ইতালিতে দীর্ঘদিনের লকডাউন সত্ত্বেও করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত ১০ হাজারেরও বেশি লোক মারা গেছে।
দেশটিতে শুক্রবার ৯৬৯ জনের প্রাণহানির পর শনিবার ৮৮৯ জনের মৃত্যুর খবর জানানো হয়েছে।
গত ২২ মার্চের পর দেশটিতে করোনায় মৃতের সংখ্যা কমে আসার প্রেক্ষিতে ইতালিয়ানরা আশা করেছিল ভয়াবহ এই করোনা ভাইরাসের প্রকোপ কমে আসছে। কিন্তু নতুন করে এই মৃত্যুর মিছিল তাদের সে আশা আশংকায় রূপ নিয়েছে।
ইতালির প্রধানমন্ত্রী গুইসেপে কন্টে শনিবার এক টেলিভিশন ভাষণে দেশবাসীকে আরো সময় ধরে ঘরে অবস্থান করার জন্যে প্রস্তুত থাকতে বলেছেন।
এদিকে করোনা ভাইরাসের মূল কেন্দ্র ইউরোপ আগামী কয়েক মাসের মধ্যে ভয়াবহ মন্দার কবলে পড়তে যাচ্ছে বলে আশংকা করা হচ্ছে। বিশেষ করে ইতালি আসন্ন অর্থনৈতিক ধ্বংসের হুমকির মুখে রয়েছে। গত ১২ মার্চ থেকে দেশটির সবধরণের অর্থনৈতিক কর্মকান্ড বন্ধ রয়েছে।
অনেক চিকিৎসকরা বলছেন, ইতালিতে করোনায় মৃতের সংখ্যা আরো বেশি। কারণ কোভিড ১৯ এ মারা যাওয়ার সকল মৃত্যুর খবর জানাচ্ছে না রির্টারমেন্ট হোমগুলো। এছাড়া বাড়িতে যারা মারা যাচ্ছে তাদের খবরও অজানা রয়ে যাচ্ছে।
পত্রিকাকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে কন্টে সতর্ক করে বলেন, ২০০৮ সাল থেকে এ সংকট সম্পূর্ণ ভিন্ন।
তিনি বলেন, ইউরোপের ইতিহাসের এক সংকটকালীন মূহূর্তে আমরা দাঁড়িয়ে আছি।

বাড়ি ফেরা হলো না তার
                                  

লকডাউনের জেরে বন্ধ ট্রেন, বাসসহ সব যানবাহন। তাই হেঁটেই বাড়ি ফিরছিলেন এক যুবক। টানা ২০০ কিলোমিটার হাঁটার পর তার আর বাড়ি ফেরা হয়নি। রাস্তার মধ্যেই চলে গেছে প্রাণ। 

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতে। ৩৮ বছরের যুবক রণবীর সিংহের বাড়ি মধ্যপ্রদেশের মোরেনা জেলায়। দিল্লি থেকে দূরত্ব ৩০০ কিলোমিটারেরও বেশি।

দিল্লিতে তিনি একটি সংস্থায় ডেলিভারি এজেন্ট হিসেবে কাজ করতেন। কিন্তু ভারতে লকডাউনের ঘোষণার পর থেকেই কাজ বন্ধ। পুলিশ ও পরিবার সূত্রে খবর, মাসের শেষ দিকে টাকা পয়সা তেমন হাতে ছিল না। আবার টাকা থাকলেও হোটেল, দোকানপাট বন্ধ হয়ে যাওয়ায় খাবার জোগাড় করাই সঙ্কট হয়ে দাঁড়িয়েছিল রণবীরের কাছে। তাই হেঁটেই ঘরে ফেরার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।

পুলিশ জানিয়েছে, তীব্র গরমে দীর্ঘ পথ হাঁটার ক্লান্তি আর শক্তিক্ষয়ের জেরে আগ্রার কাছে প্রথমে অসুস্থ হয়ে পড়েন রণবীর। স্থানীয় এক দোকানদার তাকে সেবা দিয়ে সুস্থ করে তোলেন। আবারও হাঁটতে শুরু করেন তিনি। কিন্তু বাড়ি থেকে ৮০ কিলোমিটার দূরে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে রাস্তার মধ্যেই তার মৃত্যু হয়। 

পুলিশ জানিয়েছে, ওই যুবকের মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। পরিবারের লোকজনকেও জানানো হয়েছে। সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

স্পেনের রাজকন্যার করোনায় মৃত্যু
                                  

করোনাভাইরাসের থাবায় স্পেনের রাজকন্যা প্রিন্সেস মারিয়া টেরেসার (৮৬) মৃত্যু হয়েছে। রাজপরিবারের সদস্যদের মাঝে কোনো ব্যক্তির এ ভাইরাসে মৃত্যুর ঘটনা বিশ্বে এটাই প্রথম। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি এক্সপ্রেসের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

রাজকন্যার ভাই প্রিন্স সিক্সটাস হেনরি পরিবারের পক্ষ থেকে শুক্রবার তার মৃত্যুর বিষয়টি ঘোষণা দেন। তিনি বলেন, ‘রাজ পরিবার আজ শোকের মাধ্যমে ঘোষণা করছে যে, বারবন পার্মা রাজকন্যা মারিয়া করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।’

প্রিন্স জাভিয়ের ও ম্যাডেলিন ডি বোরবনের ঘরে ১৯৩৩ সালে প্যারিসে জন্ম হয় মারিয়ার। স্পেনের হাউজ অব বোরবনের বর্তমান ডিন্যাস্টির ক্যাডেট শাখার সদস্য ছিলেন তিনি।

প্রাপ্তবয়স্ক জীবনের বেশিরভাগ সময় মাদ্রিদে কাটান মারিয়া। স্প্যানিশ রাজনৈতিক আন্দোলন নিয়ে গবেষণা ও লেখালেখিও করতেন তিনি। মারিয়া ছিলেন চিরকুমারী।

করোনা আক্রান্ত ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন
                                  

ব্রিটিশ রাজপরিবারে আঘাত হেনেই থেমে থাকেনি প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯)। থাবা বসিয়েছে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের ওপরও। পরীক্ষায় তার করোনা ভাইরাস পজেটিভ পাওয়া গেছে। এদিকে, কোনো দেশের সরকারপ্রধান হিসেবে তিনিই প্রথম করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন।

শুক্রবার (২৭ মার্চ) স্থানীয় সময় বেলা সোয়া ১১টার দিকে টুইটারে একটি ভিডিওবার্তায় এ খবর আবার তিনি নিজেই দিয়েছেন। বলেছেন, গত ২৪ ঘণ্টা ধরে লক্ষণগুলো হালকা হালকা টের পাচ্ছিলাম। আর তখনই পরীক্ষা করাই। যাতে ধরা পড়ে করোনা ভাইরাস পজেটিভ।

তিনি বলেন, বর্তমানে আমি স্বেচ্ছায় আইসোলেশনের আছি। তবে এই ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করতে হলেও সরকারি নেতৃত্ব-দায়িত্ব ঠিকই পালন করে যাব। এর জন্য ভিডিও কনফারেন্সের ব্যবস্থা করা হবে। একইসঙ্গে এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে প্রতিরোধও গড়ে তোলা হবে।

একই টুইটে করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় সবাইকে ‘ঘরে থাকুন এবং নিরাপদ জীবনযাপন করুন’ এই আহ্বানও জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ান জানিয়েছে, বরিস জনসন বর্তমানে দেশটির প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটে স্বেচ্ছায় আইসোলেশনে আছেন। তার মধ্যে সাধারণ লক্ষণ রয়েছে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের।

এর আগে বুধবার (২৫ মার্চ) করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্ত হন ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের বড় ছেলে প্রিন্স অব ওয়েলস চার্লস (৭১)। তিনিও স্কটল্যান্ডের নিজ বাড়িতে স্বেচ্ছায় আইসোলেশনে রয়েছেন।

রাশিয়ার কুরিল দ্বীপে ৭.৫ মাত্রার ভূমিকম্প
                                  

রাশিয়ার কুরিল দ্বীপে রিকটার স্কেলে ৭.৫ মাত্রার ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে। যুক্তরাষ্ট্রের ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা (ইউএসজিএস) এ কথা জানায়।
ইউএসজিএস জানায়, জাপানের সাপোরো নগরী থেকে ১৪০০ কিলোমিটার (৮৫০ মাইল) দূরে ভূগর্ভের ৫৯ কিলোমিটার (৩৭ মাইল) গভীরে এই ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল।
ইউএস ন্যাশনাল সুনামি সেন্টার বলেছে,তারা ঝুঁকির মাত্রা নিরুপন করছে, ভূমিকম্পে এ অঞ্চলে ভয়ঙ্কর সুনামির আশঙ্কা রয়েছে।
সবচেয়ে উত্তরের চারটি দ্বীপ হাবোমি,সিকোতান,ইটোরুফু ও কুনাসহিরি নিয়ে কুরিল দ্বীপমালা। কুরিল নিয়ে রাশিয়া ও জাপানের মধ্যে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের শেষ হওয়ার পর থেকে বিরোধ চলছে।
কুরিল জাপানের উত্তর সীমান্ত হিসেবেও পরিচিত।

ইতালি ও স্পেনে একদিনে মারা গেল ১৪২৩
                                  

করোনাভাইরাসে বিপর্যস্ত ইতালিতে গত ২৪ ঘণ্টায় এই রোগে মৃতের সংখ্যা বিগত দুই দিনের তুলনায় বেড়েছে। তবে নতুন রোগী বৃদ্ধির হার কমেছে।

মঙ্গলবার ৭৪৩ জনের মৃত্যুর তথ্য দিয়েছে ইতালির বেসামরিক সুরক্ষা সংস্থা। তাদের নিয়ে এই রোগে দেশটিতে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ৮২০ জনে।

ইতালির কর্মকর্তারা মঙ্গলবার নতুন করে তিন হাজার ৬১২ জনের করোনাভাইরাস ধরা পড়ার কথা জানিয়েছে। 

ইতালিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬৯ হাজার ১৭৬ জন। এদের মধ্যে মঙ্গলবার নাগাদ আট হাজার ৩২৬ জন পুরোপুরি সেরে উঠেছেন। এখন আইসিইউতে আছেন তিন হাজার ৩৯৬ জন।

এদিকে, মহামারী করোনায় বিপর্যস্ত স্পেনে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েই চলছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মারা গেল আরও ৬৮০ জন।

এ নিয়ে করোনায় দেশটিতে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়াল ২ হাজার ৯৯১ জনে। এ ছাড়া করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৬ হাজার ৯২২ জন।

ফলে এ পর্যন্ত স্পেনে আক্রান্তের সংখ্যা ৪২ হাজার ৫৮ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছে বাড়ি ফিরেছেন ৩ হাজার ৭৯৪ জন।

বর্তমানে ৩৫ হাজার ২৭৩ জন আক্রান্ত ব্যক্তি চিকিৎসাধীন। তাদের মধ্যে ৩২ হাজার ৬৩৭ জনের অবস্থা সাধারণ। বাকি ২ হাজার ৬৩৬ জনের অবস্থা গুরুতর, যাদের অধিকংশই আইসিইউতে রয়েছেন।

করোনায় মৃত্যু ১০ হাজার ছাড়ালো
                                  

বিশ্বজুড়ে মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়িয়েছে। যুক্তরাজ্যের জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে এমনটি জানানো হয়েছে।

গত ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকে করোনাভাইরাসের উৎপত্তি হয়। এরপর থেকেই প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটির মৃতের সংখ্যা নিয়ে বিভিন্ন উৎস থেকে পাওয়া তথ্য সমন্বয় করে একটি টালি প্রকাশ করে আসছে যুক্তরাষ্ট্রের জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়।

করোনাভাইরাস চীন থেকে ছড়িয়ে পড়লেও এতে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে ইতালিতে। ইতালিতে গত ২৪ ঘণ্টায় ৪২৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে মারা গেছেন ৩ হাজার ৪শ ৫ জন, আক্রান্ত হয়েছেন ৪১ হাজারের বেশি মানুষ।

এদিকে জার্মানি, ইরান, স্পেনে করোনাভাইরাসে সাড়ে চার হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছেন। এছাড়া করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে মারা গেছেন ২০০ জন। এছাড়া দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ১৩ হাজার। দক্ষিণ এশিয়ার দেশ পাকিস্তান, ভারতেও করোনাভাইরাসে নতুন করে দুজনের মৃত্যু হয়েছে।

মসজিদে ‘যুদ্ধপতাকা’ ওড়ালো ইরান, তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের আশঙ্কা!
                                  

মার্কিন হামলায় জেনারেল কাসেম সোলেমানি নিহত হওয়ার ঘটনায় আসন্ন প্রতিশোধের ইঙ্গিত জানিয়ে পবিত্র মসজিদের চূড়ায় ‘যুদ্ধের লাল ঝাণ্ডা’ উড়িয়েছে ইরান।  

 
 

শনিবার (৪ জানুয়ারি) ইরাকের বাগদাদে মার্কিন দূতাবাস ও সালাহউদ্দিন প্রদেশে মার্কিন সেনাদের বালাদ বিমান ঘাঁটিতে রকেট হামলার ঘটনা ঘটে। এর কয়েক ঘণ্টা পর ইরানের কম প্রদেশের পবিত্র মসজিদ জামকারান’র সর্ব্বোচ্চ গম্বুজে রক্তলাল পতাকা ওড়ায় ইরান। 

যদিও বাগদাদের মার্কিন স্থাপনায় কারা হামলা চালিয়েছে তা এখনও জানা যায়নি। ওই হামলায় একযোগে ৫টি রকেট ছোড়া হয়। এতে এখন পর্যন্ত ৫ জন আহত বলে জানা গেছে।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম জানায়, ইতিহাসে এই প্রথমবারের মতো ইরান জামকারান মসজিদে রক্তলাল পতাকা ওড়ালো। পতাকাটিতে লেখা, ‘যারা হোসেনের রক্তের বদলা নিতে চায়’। 

এই পতাকা ওড়ানোকে সোলেমানি হত্যার দায়ে আমেরিকার ওপর ইরানের বদলা নেওয়ার অঙ্গীকার হিসেবে দেখা হচ্ছে। সম্ভাব্য যুদ্ধের হুঁশিয়ারি হিসেবেও দেখা হচ্ছে এ পতাকাকে।  শিয়া সংস্কৃতিতে লাল পতাকা দিয়ে অন্যায় রক্তপাতের বদলা নেওয়ার প্রতীক। 

এর আগে শুক্রবার (৩ জানুয়ারি) কাসেম সোলেমানিকে হত্যায় ক্ষুব্ধ হয়ে হাজার হাজার শোকার্ত মানুষ বাগদাদের রাস্তায় নেমে আসে ও ‘আমেরিকা নিপাত যাক’ বলে স্লোগান দিতে থাকে।   

বৃহস্পতিবার (২ জানুয়ারি) রাতে বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে মার্কিন হামলায় নিহত হন ইরানি বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর এলিট কুদস ফোর্সের প্রধান জেনারেল কাসেম সোলেমানি।  মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশে সোলেমানিকে হত্যা করা হয় বলে নিশ্চিত করে পেন্টাগন।

ওই ঘটনায় ইরানের সর্ব্বোচ্চ নেতা আয়াতোল্লাহ আলি খামেনি, পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ, প্রতিরক্ষা মন্ত্রী আমির হাতামি, ইরানি বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর সাবেক কমান্ডার মোহসেন রেজায়িসহ ইরানের উর্ধ্বতন পর্যায়ের বিভিন্ন নেতা সোলেমানি হত্যার ঘটনায় আমেরিকাকে চড়া মূল্য দিতে হবে বলে হুঁশিয়ারি জানিয়েছেন।

সার্বিক পরিস্থিতিতে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের আশঙ্কা ছড়িয়ে পড়েছে অনেকের মাঝেই। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে লাখ লাখ পোস্টে সাধারণ মানুষও এ আশঙ্কা করছেন, লাখ লাখ মানুষ হ্যাশট্যাগ দিয়ে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ শব্দবন্ধ লিখছেন। 

এরই মাঝে সোলেমানি হত্যায় ক্ষুব্ধ ইরানের জেনারেল গোলাম আলি আবু হামজাহ হরমুজ প্রণালীতে গুরুত্বপূর্ণ মার্কিন স্থাপনায় হামলার হুঁশিয়ারি জানিয়েছেন। তার বাহিনী ডেস্ট্রয়ার ও যুদ্ধজাহাজসহ পারস্য উপসাগর ও ইজরায়েলের নিকটবর্তী প্রায় ৩৫টি মার্কিন স্থাপনার দিকে তাক করে আছে বলে জানান তিনি।


   Page 1 of 25
     আন্তর্জাতিক
বিশ্বজুড়ে করোনায় মৃতের সংখ্যা ছাড়াল ৩ লাখ
.............................................................................................
বিশ্বে মৃতের সংখ্যা এখন প্রায় তিন লাখ
.............................................................................................
করোনায় বিশ্বে মৃতের সংখ্যা ১ লাখ ৭৯ হাজার
.............................................................................................
বিশ্বে মৃত্যুর মিছিল ক্রমেই দীর্ঘ হচ্ছে
.............................................................................................
করোনায় বিশ্ব স্থবির
.............................................................................................
করোনায় প্রাণহানি ১ লাখ ছাড়াল
.............................................................................................
বাড়িতে থেকেও ইতালিতে করোনা থেকে রেহাই মিলছে না
.............................................................................................
কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো স্বেচ্ছায় আইসোলেশনে
.............................................................................................
ইতালিতে মৃতের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়ালো
.............................................................................................
বাড়ি ফেরা হলো না তার
.............................................................................................
স্পেনের রাজকন্যার করোনায় মৃত্যু
.............................................................................................
করোনা আক্রান্ত ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন
.............................................................................................
রাশিয়ার কুরিল দ্বীপে ৭.৫ মাত্রার ভূমিকম্প
.............................................................................................
ইতালি ও স্পেনে একদিনে মারা গেল ১৪২৩
.............................................................................................
করোনায় মৃত্যু ১০ হাজার ছাড়ালো
.............................................................................................
মসজিদে ‘যুদ্ধপতাকা’ ওড়ালো ইরান, তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের আশঙ্কা!
.............................................................................................
বাগদাদে মার্কিন দূতাবাস-বিমানঘাঁটিতে রকেট হামলা, আহত ৫
.............................................................................................
শেখ হাসিনা-মমতার সৌজন্য বৈঠক
.............................................................................................
ইরানে হামলার নির্দেশ দিয়েছিলেন ট্রাম্প
.............................................................................................
শ্রীলংকায় হামলার মূলহোতা হাশিম নিহত
.............................................................................................
ইসলাম গ্রহণের আহ্বানে যা বললেন জেসিন্ডা আরডার্ন
.............................................................................................
কমোডের ভিতর সাপ!
.............................................................................................
লন্ডন বিমানবন্দরে ড্রোনের ঘটনায় গ্রেফতার ২
.............................................................................................
ইতালির নাইটক্লাবে পদদলিত হয়ে নিহত ৬
.............................................................................................
সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট সিনিয়র বুশ আর নেই
.............................................................................................
লিবিয়ায় বিমান হামলায় ১০ জন নিহত
.............................................................................................
মোবাইল কিনতে শিশুকে বিক্রি
.............................................................................................
সৌদিদের সঙ্গে ট্রাম্পের সম্পর্ক তদন্ত করা হবে
.............................................................................................
খাসোগি হত্যাকাণ্ড : উভয় সংকটে ট্রাম্প
.............................................................................................
মোহাম্মদ বিন সালমানের নির্দেশেই খাসোগিকে হত্যা: সিআইএ
.............................................................................................
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে সরিয়ে দিচ্ছেন ট্রাম্প
.............................................................................................
অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা ১৩৬ যাত্রীর
.............................................................................................
সীমান্ত থেকে তুলে ফেলা হচ্ছে ’পূর্ব পাকিস্তান’ লেখা পিলার
.............................................................................................
শান্তিতে নোবেল পেলেন নাদিয়া মুরাদ ও ডেনিস মুকওয়েজি
.............................................................................................
ট্রাম্পের নীতিই তেলের মূল্য বৃদ্ধির জন্য দায়ী: পুতিন
.............................................................................................
রোহিঙ্গা ফেরত : ভারতীয় সিদ্ধান্তে জাতিসংঘের উদ্বেগ
.............................................................................................
ফিলিপাইন উপকূলে সামুদ্রিক ঝড় ‘মাংকুত’-এর আঘাত
.............................................................................................
সিরিয়ায় সর্বাধুনিক বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা পাঠালো রাশিয়া
.............................................................................................
রয়টার্সের সাংবাদিকদের মুক্তির আহ্বান জাতিসংঘের
.............................................................................................
বিয়েতে পুতিনকে দাওয়াত দিয়ে বিপাকে অস্ট্রিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী
.............................................................................................
কফি আনানের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক
.............................................................................................
গুয়াতেমালায় আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতে নিহত ২৫
.............................................................................................
সব জল্পনার অবসান, সামনে এলেন যুবরাজ
.............................................................................................
দেশের ৩ প্রকল্পে ভারতের ৬৪ কোটি টাকা অনুদানের চুক্তি স্বাক্ষর আগামীকাল
.............................................................................................
ভাইজানের জামিনে স্বস্তিতে বলিউড
.............................................................................................
রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীকে ট্রাম্পের শুভেচ্ছা
.............................................................................................
রাশিয়ার ২৩ কূটনীতিককে বহিষ্কার করছে যুক্তরাজ্য
.............................................................................................
মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে তলব
.............................................................................................
বাংলাদেশ ওআইসির ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত
.............................................................................................
রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সমর্থন অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি
.............................................................................................

সম্পাদক ও প্রকাশক মো: আবদুল মালেক, যুগ্ন সম্পাদক: নজরুল ইসলাম ভূঁইয়া । সম্পাদক র্কতৃক ২৪৪ ( প্রথম তলা ) ৪ নং জাতীয় স্টেডিয়াম, কমলাপুর, ঢাকা -১২১৪ থেকে প্রকাশিত এবং স্যানমিক প্রিন্টিং এন্ড প্যাকেজেস, ৫২/২ টয়েনবি র্সাকুলার রোড, ঢাকা -১০০০ থেকে মুদ্রিত । ফোন:- ০২-৭২৭৩৪৯৩, মোবাইল: ০১৭৪১-৭৪৯৮২৪, E-mail: info@dailynoboalo.com, noboalo24@gmail.com Design Developed By : Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD